• শুক্রবার   ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৩ ১৪২৭

  • || ০১ সফর ১৪৪২

৬৯

বগুড়ার ধুনটে প্রতারক লিটন গ্রেফতার

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ২৭ জুলাই ২০২০  

বগুড়ার ধুনটে বিয়ের কথা বলে, সরকারি চাকরি দেয়ার নামে, ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে কলেজ ছাত্রীর কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়ে যাওয়া সেই প্রতারক লিটন প্রামানিক ওরফে শাহীনকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

রবিবার দুপুরে মামলা দায়েরের পর তাকে ধুনট থানা হাজত থেকে বগুড়ার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত লিটন প্রামানিক সারিয়াকান্দি উপজেলার জোড়গাছা গ্রামের মৃত তইবর প্রামানিকের ছেলে।

অভিযোগ ও স্থানীয়সূত্রে জানা যায়, ধুনট সদর ইউনিয়নের উল্লাপাড়া গ্রামের মৃত শাহজাহান আলীর ছেলে ঘটক শহিদুল ইসলামের (৫৫) মাধ্যমে গত ১০ মাস আগে ধুনট পৌর এলাকার পশ্চিম ভরনশাহী গ্রামের দিনমজুর রমজান আলীর মেয়ে ধুনট মহিলা কলেজের ডিগ্রী ৩য় বর্ষের ছাত্রী রোজিনা আকতারের সাথে লিটন প্রামানিকের পরিচয় হয়।

পরবর্তীতে ঘটক শহিদুল ইসলাম তাদের বিয়ের কথাও চুড়ান্ত করেন। কিন্তু বিয়ের আগে রোজিনাকে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অফিস সহকারী পদে চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখায় হবু বর লিটন প্রামানিক। কিন্তু রোজিনার বাবার পক্ষে এত টাকা জোগাড় করা সম্ভব হচ্ছিল না। একপর্যায়ে ২০১৯ সালের ২৭ নভেম্বর গরু-ছাগল বিক্রি করে ১ লাখ টাকা জোগাড় করে ঘটক শহিদুল ও হবু বর লিটনের হাতে তুলে দেয় রোজিনার বাবা।

কিন্তু এরপরও লিটন ও ঘটক শহিদুল বিভিন্ন অজুহাতে আরো টাকার জন্য চাপ দেয়। পরে বাধ্য হয়ে রোজিনা আকতার বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে আরো ৪ লাখ ২০ হাজার টাকা বিভিন্ন সময় লিটনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের বিভিন্ন নম্বরে, ডাজ বাংলা ব্যাংক, বিকাশ ও কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে ঢাকার মিরপুরের ঠিকানায় পাঠিয়ে দেয়।

এরপর ২০২০ সালের ২৪ মার্চ লিটন ধুনট পোষ্ট অফিসের মাধ্যমে রোজিনার ঠিকানায় বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মচারী পরিদপ্তরের একটি নিয়োগপত্র পাঠায়। গত ১৫ মার্চে স্বাক্ষরিত স্মারকের (নং-১০২২-পাউবো (কউ)/এ-১ (২য় খন্ড) নং) সেই নিয়োগপত্রে রোজিনা আকতারের পদায়নকৃত দপ্তর দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলীয় পরিমাপ বিভাগ, পাউবো, ফরিদপুর উল্লেখ্য থাকলেও সেটা ভুয়া নিয়োগপত্র হিসেবে প্রামাণিত হয়। এরপর থেকেই রোজিনার সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় প্রতারক হবু বর লিটন।

এঘটনায় গত ১৮ জুলাই রোজিনা আকতার বাদী হয়ে ঘটক শহিদুল ইসলাম ও প্রতারক লিটন সহ তিন জনের বিরুদ্ধে ধুনট থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। শনিবার (২৫ জুলাই) রাতে ধুনট থানার এসআই প্রদীপ কুমার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে স্থানীয়দের সহযোগিতায় অভিযান চালিয়ে ধুনট উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের নিত্তিপোত্তা গ্রামের একটি বাড়ি থেকে প্রতারক লিটন প্রমানিককে গ্রেফতার করে।

তবে থানা হাজতে গ্রেফতারকৃত লিটন প্রামানিক জানান, কলেজ ছাত্রী রোজিনার সাথে বিয়ের নাটক সাজিয়ে প্রতারনের ফাঁদ তৈরী করেছিলেন ঘটক শহিদুল। এজন্য তাকে ৭০ হাজার টাকাও দিতে হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন এলাকার চাকরি প্রার্থীদের থেকে টাকা তুলে আরেক ভাইকে ২৫ লাখ টাকা দিয়েছি। কিন্তু কারোই চাকরি হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা জানান, প্রতারক লিটন প্রামাণিকের দুটি স্ত্রী থাকা স্বত্তেও নাম পরিচয় গোপন রেখে বিয়ের নাটক সাজিয়ে সরকারি চাকরির ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে কলেজ ছাত্রীর সাথে প্রতারনা করে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। এঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের পর প্রতারক লিটনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এছাড়া মামলার অন্য আসামীদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া
বগুড়া বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর