• শনিবার   ১১ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২৭ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলকদ ১৪৪১

২৪

লাদাখে চীনের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হয়েছিল ভারতের ৭৬ সেনা

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ১৯ জুন ২০২০  

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকায় চীনা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষের সময় ভারতের কর্নেল পদমর্যাদার একজনসহ মোট ২০ সেনা নিহত হওয়ার পাশাপাশি আরো ৭৬ জন সেনা আহত হয়েছিল বলে দাবি করেছে ভারত। আহতদের মধ্যে ১৮ জন লেহের হাসপাতাল এবং বাকি ৫৮ জন বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে শুক্রবার এ তথ্য জানিয়েছে দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি।

দেশটির সেনাবাহিনী জানায়, চিকিৎসাধীন কারোই অবস্থা বেশি গুরুতর নয়। তারা দ্রুত কাজে যোগ দিতে পারবেন। যারা লেহের হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা ১৫ দিনের মধ্যে কাজে যোগ দিতে পারবেন বলে আশা করা হচ্ছে। বাকিদের সময় লাগবে আরো কম।

এক মাসেরও বেশি সময় ধরে লাদাখ সীমান্তে ভারত ও চীনা সেনাদের মধ্যে উত্তেজনার পর গত ১৫ জুন উভয় পক্ষ সংঘাতে জড়ায়। ওইদিন লাদাখের সুউচ্চ পর্বতমালায় গালওয়ান নদীর পূর্ব পার ধরে টহলে বেরিয়েছিল ভারতীয় সেনাবাহিনীর বিহার রেজিমেন্টের একটি পেট্রোল টিম। তাদের সঙ্গেই চীনা সেনাদের তীব্র সংঘাত হয়। দুই পক্ষই পরস্পরের বিরুদ্ধে নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘনের অভিযোগ এনেছে।

ওই সংঘাতের ঘটনায় বৃহস্পতিবার ৭৬ সেনা সদস্য আহত হওয়ার কথা প্রকাশ করে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

কর্নেল বিকে সন্তোষ বাবুর নেতৃত্বে ভারতীয় সেনা সদস্যরা চীনা বাহিনীর একটি তাঁবু সরিয়ে দিতে গেলে গত সোমবার রাতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘাত শুরু হয়। উভয় পক্ষ কাঁটা তারে জড়ানো রড ও পাথর নিয়ে সংঘাতে জড়ায়। এই ঘটনায় হতাহতের কোনো সংখ্যা প্রকাশ করেনি বেইজিং। তবে ভারতীয় সেনাবাহিনীর দাবি অন্তত ৪৫৬ জন চীনা সেনা নিহত বা আহত হয়েছে।

সংঘাতের পর চীনের হাতে আটক থাকা ১০ ভারতীয় সেনা সদস্যকে মুক্তি দেয়া হয়েছে। মুক্তি প্রাপ্তদের মধ্যে একজন লেফটেন্যান্ট কর্নেল ও তিনজন মেজর রয়েছেন বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো নিশ্চিত করেছে।

এদিকে সংঘাতের পর টানা দ্বিতীয় দিনের মতো বৃহস্পতিবারও আলোচনা অব্যাহত রাখে ভারত ও চীনের সেনা কর্তৃপক্ষ। তবে এই বৈঠক থেকে এখনো ফলপ্রসূ কিছু না আসায় সীমান্তে উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে।

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া
আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর