• শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৭

  • || ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

২৮

শিশুর সর্দি-কাশি হলে যেসব খাবার খাওয়ানো বিপজ্জনক!

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২০  

শীতের এই সময় বড়দের পাশাপাশি ছোটদেরও সর্দি-কাশির সমস্যা লেগেই থাকে। সাধারণ ঠান্ডা লাগা, হাঁচি, কাশি হয়ে থাকে। হতে পারে সামান্য জ্বরও। এসময় সবেচেয়ে বেশি খেয়াল রাখা উচিত খাবারের ক্ষেত্রে। কারণ তার উপরেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও সুস্বাস্থ্য নির্ভর করে। ঠান্ডা লাগলে শিশুকে কয়েকটি খাবার একেবারেই দেয়া উচিত না। 

ঠান্ডা বা ফ্লুতে আক্রান্ত হলে শিশুদের নাক দিয়ে পানি বের হতে থাকে, হাঁচি-কাশিও হয়। সবচেয়ে বেশি খেয়াল রাখবেন খাবারের ক্ষেত্রে। কারণ তার উপরেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও সুস্বাস্থ্য নির্ভর করে। ঠান্ডা লাগলে শিশুকে কয়েকটি খাবার একেবারেই দেবেন না।

> এই সময় শিশুদের চিকেন বা মাটন দেয়া কখোন উচিত নয়। কারণ মাংসে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে যাতে গলার ভিতরে মিউকাসের সৃষ্টি হতে পারে। এতে শিশুর অস্বস্তি বাড়বে। 

> চকোলেট, ক্যান্ডি, মিষ্টি এই সময় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে। বেশি মিষ্টতা রক্তে হোয়াইট ব্লাড সেলস তৈরির গতি কমিয়ে দেয়। এর ফলে শিশুর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। যার ফলে খুব সহজেই সংক্রমণ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে-

> এখন বাঙালির ঘরে ঘরে পৌঁছে গিয়েছে প্যাকেটজাত খাদ্য। ফ্রেঞ্চ ফ্রাইজ, নাগেটস, সসেজের মতো রেডিমেড প্যাকেটজাত খাবার এখন সকলেই বাড়িতেই থাকে। শিশু যত এই ধরনের খাবার বেশি খাবে ততই গলায় মিউকাস তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা বাড়বে।

> দুধ এমনিতে উপকারী কিন্তু সবার ক্ষেত্রে নয়, আর সবসময় নয়। শীতের সময় শিশুর খাবারে চিজ, ক্রিম বন্ধ করে দিন। তেমন হলে দুধের পরিমাণও কমিয়ে দিন।

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর