• শনিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৪ ১৪২৭

  • || ০১ সফর ১৪৪২

৬৭

শেষ মুহূর্তে আটলান্টাকে উড়িয়ে সেমিতে পিএসজি

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০২০  

উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে এই প্রথমবার কোয়ার্টার ফাইনাল হল সিঙ্গেল লেগে। আর সেখানে ইতিহাস গড়লো প্যারিস সেইন্ট জার্মেই (পিএসজি)। পিছিয়ে পরেও ম্যাচের শেষ মুহূর্তে নাটকীয়ভাবে দুই গোল করে আটলান্টাকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে ২৫ বছর পর চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে উঠেছে তারা। ফ্রান্সের ক্লাবটি সবশেষ ১৯৯৫ সালে সেমিফাইনালে খেলেছিল।

খেলার ৮৯ মিনিট পর্যন্ত নিজেদের দখলে রেখেছিল ইতালিয়ান ক্লাব আটালান্টা তবে শেষ মিনিট উলটে গেলো সব। ঘড়ির কাঁটা ৯০ ছুঁই ছুঁই। তখনও আটালান্টার বিপক্ষে পিছিয়ে পিএসজি। এক গোল দিয়ে দলকে সমতায় ফেরালেন মার্কিনিয়োস। তখন অতিরিক্ত সময়ে গড়াচ্ছে ম্যাচ। কিন্তু নাটক সব জমা ছিল শেষ সময়ের জন্যই। মিনিটখানেক পরই গোল করে বসলেন এরিক মেক্সিম। তাতে হৃদয় ভাঙল আটালান্টার। আর নিজেদের ইতিহাসে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিফাইনালে উঠে গেল পিএসজি।

বুধবার লিসবনের স্টাডিও দ্য লুজে ম্যাচের ২৬ মিনিটে ইতালিয়ান ক্লাব আটালান্টার মারিও পাসালিক গোল করে এগিয়ে নেন দলকে। ৮৯ মিনিট পর্যন্ত এগিয়ে ছিল তারা। স্বপ্ন দেখছিল সেমিফাইনালের। কিন্তু ৪ মিনিটের ব্যবধানে সব শেষ। ৯০ মিনিটে নেইমারের বাড়িয়ে দেয়া বল জালে জড়িয়ে মারকুইনহোস গোল করে সমতা ফেরান। 

আর যোগ করা সময়ে (৯০+৩) এমবাপের বাড়িয়ে দেয়া বল থেকে গোল করে এরিক ম্যাক্সিম ২৫ বছর পর সেমিফাইনালে তোলেন পিএসজিকে। ম্যাচের ৯২তম মিনিটে হওয়া এই গোলে সহায়তা করেন নেইমার। অপরটিতে কিলিয়ান এমবাপে।

ম্যাচের পাঁচ মিনিটেই সহজ সুযোগ হাতছাড়া করেন নেইমার। কিন্তু ম্যাচের ২৬ মিনিটে সুযোগ হাতছাড়া করেনি আটলান্টা তারকা পাসালিক। তার বাঁকনো শট ফেরাতে ব্যর্থ হন পিএসজির বাররক্ষক কেইলর নাভাস।

বিরতির পরও খুব একটা সুযোগ তৈরি করতে পারেনি পিএসজি। পিছিয়ে থাকলেও হাল ছাড়েনি এমবাপেরা। ম্যাচের অন্তিম মুহুর্ত পর্যন্ত চালিয়ে গেছেন লড়াই। ফলাফল দৃশ্যমান- শেষ মুহূর্তে গিয়ে দুটি সুযোগের দুটি থেকেই গোল আদায় করে সেমিফাইনালে জায়গা করে নেয় তারা। 

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া
খেলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর