• মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৭ ১৪২৭

  • || ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

২৮

সোনাতলায় বাসভাসী গৃহহীন মানুষের জন্য তাবু স্থাপন

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ২৬ জুলাই ২০২০  

বগুড়ার সোনাতলায় যমুনা ও বাঙালী নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। যমুনা নদীতে বিপদ সীমার ১১৭ সেন্টিমিটার ও বাঙালী নদীতে ২০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।

এমনটি অবস্থায় বাড়িঘরে পানি ওঠা মানুষগুলো ইতিমধ্যেই আশ্রয় নিয়েছে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ কিংবা আশ্রয়ন কেন্দ্রে। অপর দিকে চরাঞ্চলের গৃহহীন মানুষের জন্য উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে তাবু স্থাপন করা হচ্ছে। যাতে করে গৃহহীন মানুষগুলো পরিবার পরিজন নিয়ে মাঁথাগোজার ঠাঁই পায়।

বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার তেকানীচুকাইনগর ও পাকুল্লা ইউনিয়নের চরাঞ্চলের গৃহহীন মানুষের জন্য উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে তাবু স্থাপন করা হচ্ছে। প্রাথমিক ভাবে উপজেলার তেকানীচুকাইনগর ইউনিয়নের চরমহনপুর ও চরচুকাইনগর এলাকায় গৃহহীন বানভাসীদের জন্য তাবু স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে। ওই দুটি স্থানে আশ্রয়ন প্রকল্প স্থাপনের জন্য ইতিমধ্যেই মাটি কাটার কাজ শেষ হয়েছে।

বন্যার পানিতে দিশেহারা হওয়া গৃহহীন মানুষগুলো যখন পরিবার পরিজন নিয়ে খোলা আকাশের নিচে বসবাস করতে শুরু করেছিল ঠিক সেই মুহুর্তে উপজেলা প্রশাসন বানভাসীদের জন্য খুব সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে এসব তাবু স্থাপন করেছে। তাবু স্থাপনে স্থানীয় জনসাধারণের পাশাপাশি স্কাউট দল সহযোগিতা করেছে। তাবু স্থাপন কাজের উদ্বোধন করেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শফিকুর আলম। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা প্রকল্প মোঃ জিয়াউর রহমান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শামছুল হক মন্ডল সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও জনপ্রতিনিধিগণ।

ত্রাণ ও দূর্যোগ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে এসব তাবুতে ১০জন করে সদস্য বসবাস করতে পারবে। এছাড়াও বসবাসকারীদের বিশুদ্ধ পানি ও জলের জন্য টিউবওয়েল স্থাপন করা হয়েছে। এ বিষয়ে স্থানীয় বানভাসী মানুষগুলো উপজেলা প্রশাসনের এই মহান উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান এড. মিনহাদুজ্জামান লীটন জানান, এটি সরকারের একটি মহৎ উদ্যোগ। শেখ হাসিনা সরকার গরীব মানুষের সরকার। তাই একটি মানুষও যাতে গৃহের অভাবে খোলা আকাশে নিচে রাত্রিযাপন না করে এজন্য সরকার গৃহহীন বানভাসীদের জন্য এই উদ্যোগ নিয়েছে। এটি অস্থায়ী না করে বানভাসীদের জন্য স্থায়ী করা হলে অভাবী মানুষগুলো আরও উপকৃত হতো।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শফিকুর আলম জানান, বানভাসী গৃহহীন মানুষগুলো যাতে পরিবার পরিজন নিয়ে ভালোভাবে ঘুমাতে পারে এজন্য জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অস্থায়ীভাবে বানভাসীদের জন্য এসব তাবু স্থাপন করা হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ জিয়াউর রহমান জানান, বন্যায় ভাসমান এবং পানিতে হাবুডুবু খাওয়া গৃহহীন মানুষের জন্য তাবু স্থাপনের মধ্যে দিয়ে তাদের নিরাপদ আশ্রয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ওই তাবুতে বসবাসকারীদের মশারীর প্রয়োজন হবে না। প্রাথমিক ভাবে ৫০টি তাবু স্থাপন করা হলেও চাহিদার প্রেক্ষিতে তাবুর সংখ্যা আরও বৃদ্ধি করা হবে।

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া
বগুড়া বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর