বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০

ইউটিউব দেখে রঙিন মাছ চাষ শিখেছিলেন, এখন মাসে আয় ৫০ হাজার

ইউটিউব দেখে রঙিন মাছ চাষ শিখেছিলেন, এখন মাসে আয় ৫০ হাজার

করোনার ঘরবন্দী সময়ে  ‘একটা কিছু করা’র তাগিদ থেকে ব্যবসা শুরু করেছিলেন অনেকে। কেউবা নিতে চেয়েছেন নতুন এক চ্যালেঞ্জ। করোনাকাল যাঁদের উদ্যোক্তা বানিয়েছে, তাঁদের মধ্য থেকেই কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলেছিলাম আমরা। এখনো শক্ত হাতে ব্যবসার হাল ধরে আছেন তাঁরা।

এখানে পড়ুন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাগর সরকারের কথাকরোনায় হঠাৎ ক্যাম্পাস বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বাড়িতে বসে অলস সময় কাটাচ্ছিলেন সাগর সরকার। রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জেন্ডার অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের এই শিক্ষার্থী ভাবছিলেন, কী করা যায়। হঠাৎ ইউটিউবে তাঁর চোখে পড়ে রঙিন মাছ চাষের ভিডিও। এ ধরনের মাছের চাষ নিজের বাড়িতেও করা যায় কি না, ভাবতে শুরু করেন। তারপর মাত্র তিন হাজার টাকা পুঁজি নিয়ে কিছু ‘অটো ব্রিড’ মাছ দিয়ে শুরু করেন মাছ চাষের ব্যবসা।কিন্তু ব্যবসা শুরুর পরই দেখা দেয় বড় সংকট।

মাছগুলো কোথায় বিক্রি করবেন, স্থানীয় বাজারে এসব মাছ মানুষ কিনবে কি না, এসব প্রশ্ন মাথায় আসতে থাকে। পরিচিত একজন সব শুনে মাছ কিনতে আগ্রহ দেখান। সাগর একটু একটু করে বুঝতে পারেন, স্থানীয় বাজারেও এই মাছের চাহিদা আছে। একসময় এমন হলো, বাজারে চাহিদা অনুযায়ী মাছ সরবরাহ করতে পারছিলেন না। তখন ঠিক করেন, ব্যবসার পরিধি আরও বড় করবেন। কিন্তু তাতে সায় দেয়নি পরিবার। কেননা, বড় পরিসরে ব্যবসা করতে গেলে বেশি লাভের সুযোগ যেমন থাকে, তেমনি থাকে বড় অঙ্কের লোকসানের শঙ্কা। কিন্তু সাগর সরকারের ছিল দৃঢ় মনোবল। পরিচিত এক আপুর কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা ধার নিয়ে ব্যবসা বড় করার উদ্যোগ নিলেন তিনি। কিছু কইকার্প ও কমেট মাছ নিয়ে এসে কোনো প্রশিক্ষণ ছাড়াই ইউটিউব দেখে দেখে রেণু উৎপাদন করে ফেলেন। তত দিনে পরিবারও সহযোগিতা করতে শুরু করে। অতএব আরও ৪৫ শতাংশ পুকুরে মাছ চাষ শুরু করেন তিনি। এই পুকুরে উৎপাদিত মাছগুলো ৫ মাসে বিক্রি করেন। বড় অঙ্কের লাভের মুখ দেখেন সাগর সরকার।

এখন ৩টি পুকুর ও ১৮টি হাউস যুক্ত করে ১৫ থেকে ২০ জাতের দেড় লাখ রঙিন মাছ উৎপাদন করছেন এই তরুণ। স্থানীয় বাজারের পাশাপাশি যা আশপাশের বাজারের চাহিদাও মেটাচ্ছে। এসব মাছ থেকে বর্তমানে প্রতি মাসে তাঁর আয় হয় ৪৫ থেকে ৫০ হাজার টাকা।

সাগরের স্বপ্নটা আরও বড়। আশপাশের বাজারে নয়, তাঁর চাষ করা মাছ বিদেশেও রপ্তানি করতে চান তিনি। সাগর সরকার বলেন, ‘বাংলাদেশ প্রতিবছর জাপান ও থাইল্যান্ড থেকে ২০০ কোটি টাকার রঙিন মাছ আমদানি করে। দেশে এসব মাছের উৎপাদন বাড়ানো গেলে একদিকে যেমন আমদানি বন্ধ হবে, অন্য দিকে রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা সম্ভব হবে। পাশাপাশি এর মাধ্যমে অনেক বেকার যুবকের কর্মসংস্থানেরও সুযোগ আছে।’

দৈনিক বগুড়া

সর্বশেষ:

শিরোনাম:

সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ আজ
ধুনটে জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস পালিত
নিরাপদ-পরিবেশবান্ধব শিল্প-কারখানা গড়ে তুলতে হবে: রাষ্ট্রপতি
মার্চ থেকে আবারও বাড়ছে বিদ্যুতের দাম: নসরুল হামিদ
বগুড়ার শেরপুরে স্থানীয় সরকার দিবস উপলক্ষ্যে উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন
বগুড়ায় জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত
বগুড়ার চরাঞ্চলে বাদামের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা
৩ চাকার যান বন্ধে বগুড়া-নাটোর মহাসড়কে কঠোর অবস্থানে হাইওয়ে পুলিশ
২৪ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এলো ১৮ হাজার কোটি টাকা
বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অনেকের জন্য অনুপ্রেরণা
‘জাতীয় বস্ত্র দিবস- ২০২৩’ উদ্বোধন করবেন রাষ্ট্রপতি
সান্তাহার বীর মুক্তিযোদ্ধার নামে রাস্তার নামকরণ কাজের উদ্বোধন