রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ফর্সা হলেই মিলবে যে মোটা বেতনের চাকরি!

ফর্সা হলেই মিলবে যে মোটা বেতনের চাকরি!

সৌন্দর্য কখনো গায়ের রঙের উপর নির্ভর করে না। তবুও ফর্সা মানুষের কদর সমাজে বেশ প্রতিফলিত হয়। আর এ কারণেই ফর্সা হতে কতজনই না কতকিছু করেন। তবে ফর্সা হওয়ার একটি সুবিধা আছে, সেক্ষেত্রে আপনি সহজেই একটি চাকরির জন্য যোগ্যতাসম্পন্ন হতে পারবেন। ঠিকই ধরেছেন, শিক্ষা নয় বরং গায়ের রং ফর্সা হলেই মিলবে এক বিশেষ চাকরি। তাও আবার মোটা বেতনের।

ফর্সা মানুষদের জন্য আলাদা উপার্জনের ব্যবস্থা আছে চীনে। যাকে বলা হয় হোয়াইট মাঙ্কি জব। অনেকটা ব্যঙ্গ করেই কাজটিকে এমন অদ্ভুত নামে ডাকা হয়। সাদা চামড়ার মানুষদেরকে সেখানে সাদা বানরের সঙ্গে তুলনা করা হয়।

হোয়াইট মাঙ্কি জব আসলে কী?

এই চাকরি করতে হলে আপনাকে পার্টিতে যাওয়া, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফিতা কাটা কিংবা কোনো রেস্টুরেন্টের খাবার খেয়ে প্রশংসা করতে হবে। বেশিরভাগই বিভিন্ন পণ্যের মডেলিং ও বিজ্ঞাপনের জন্য নির্বাচিত হন এই চাকরিতে।

চীনে এ ধরনের কাজ প্রায় সব জায়গাতেই দেখা যায়। এর জন্য মোটা টাকা বেতনও দেওয়া কর্মচারীদেরকে। সঙ্গে থাকে প্রচুর লোভনীয় উপহার।

এই কাজ পেতে প্রার্থীর বিশেষ কোনো ডিগ্রির প্রয়োজন নেই। শুধু ফর্সা হলেই চলবে। তবে এটা যেহেতু স্বীকৃত কোনো চাকরি নয় তাই প্রতারিত হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। এক্ষেত্রে কাজে যোগদানের কোনো প্রমাণপত্রও দেওয়া হয় না। আবার এই কাজে কোনো নির্দিষ্ট উপার্জনও নেই।

আসলে এই কাজে যাকে ভাড়া করা হয় তার ও মালিকের মধ্যে অর্থ সংক্রান্ত মৌখিক চুক্তি হয়। সে অনুযায়ীই পারিশ্রমিক পান ওই ব্যক্তি। এই চাকরি ওই দেশে বেআইনীও বটে! তবুও হাজার হাজার মানুষ এই চাকরি বেছে নেন।

এই কাজে নিযুক্ত ব্যক্তিদের মতে, ন্যূনতম উপার্জন ১০০ ডলার যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৮ হাজার ৪৫০ টাকা। চীন এমনকি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ফর্সা প্রার্থীরা এই হোয়াইট মাঙ্কি জবের জন্য অপেক্ষারত থাকেন।

সূত্র: নেক্সট শার্ক/দ্য সান/এসসিএমপি

দৈনিক বগুড়া

সর্বশেষ: