রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

স্বাস্থ টিপস

লেটুসপাতা ভীষণ উপকারী

লেটুসপাতা ভীষণ উপকারী

সংগৃহীত

লেটুস (Lactuca sativa) হলো অ্যাস্টেরাসি পরিবারের একটি একবর্ষজীবী উদ্ভিদ। লেটুস প্রায়শই সালাদে ব্যবহৃত হয়। এটি অন্যান্য ধরনের খাবার যেমন স্যুপ, স্যান্ডউইচ ও র‍্যাপেও দেখা যায়। এর সুন্দর স্বাদ আমাদের খাবারের রুচি যেন বহুগুনে বাড়িয়ে দেয়।

লেটুসপাতা দেখতে খুব সাধারণ হলেও এই পাতায় রয়েছে উপকারী সব পুষ্টি উপাদান। যা আমাদের নানা ভাবে শরীরের অনেক উপকার করে থাকে।

পুষ্টিগুণ

দেখতে খুব সাধারণ হলেও লেটুস পাতায় আছে একাধিক উপকারি উপাদান। যেমনঃ ফাইবার, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, সোডিয়াম, জিঙ্ক, ফলেট, ভিটামিন বি৬, ভিটামিন সি, এ, ই এবং কে-এর মত উপকারী সব উপাদান।

উপকারীতা-

(১) লেটুস আঁশ যুক্ত হওয়ায় এটি আমাদের কনস্টিপেসন কমায়। এছাড়াও যাদের হজম জনিত সমস্যা আছে তাদের জন্যও লেটুস অনেক উপকারী। কিডনির সমস্যার জন্য যেসব রোগীদের প্রস্রাবের পরিমাণ কমে যায় তাদের জন্য লেটুসপাতা ভীষণ উপকারী।

(২) লেটুসে আছে ভিটামিন সি। ভিটামিন সি আমাদের ত্বক, চুল, নখ, দাঁত, দাঁতের মাড়ি জন্য পরম উপকারী। ত্বকের ব্রণের সমস্যা দূর করতে লেটুস অনেক উপকারী। এই পাতার সোডিয়াম ভিটামিন ‘বি’ ওয়ান, ‘বি’ টু, ‘বি’ থ্রি শরীরের যেকোনো অঙ্গে পানি জমে যাওয়া রোধ করে।

(৩) লেটুসপাতা আমাদের শরীরে ক্ষতিকর কোলেস্টরলের মাত্রা কমায়। ফলে হার্ট ভালো থাকে । একই সাথে এই পাতায় পটাসিয়াম এবং সোডিয়াম থাকায় এটি আমাদের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।

(৪) দাঁতের রোগ স্ক্যাভিসহ দাঁত এবং দাঁতের মাড়ির নানারকম রোগ প্রতিরোধে লেটুসপাতা দারূন ভাবে কাজ করে।  নিয়মিত লেটুসপাতা খেলে, গ্যাস হওয়া, ক্ষুধা না লাগা, অ্যাসিডিটি—এই সমস্যাগুলো দূর হয়। লেটুসপাতা খেলে বার্ধক্য আসে দেরিতে, ত্বকে বলিরেখাও পড়ে দেরিতে।

(৫) লেটুসপাতায় থাকা ভিটামিন এ আমাদের চোখের জন্য ভীষণ উপকারী। এছাড়া গর্ভবতী মায়েরা কাঁচা লেটুসপাতা খেলে মা ও শিশু উভয়ের শরীরেই রক্তের মাত্রা বাড়ে।

এছাড়াও লেটুসপাতা ক্যান্সারের মতোরোগকে দূরে রাখতে, ব্রেন পাওয়ার বাড়াতে, ইনসমনিয়ার মতো রোগের প্রকোপ কমাতে এবং রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার উন্নতি ঘটাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে, রক্তে উপস্থিত খারাপ কোলস্টেরলের মাত্রা কমায়।

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ: