• মঙ্গলবার   ০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৩ ১৪২৮

  • || ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

আগামী ৬০ দিনের মধ্যে বগুড়া মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের ভোট

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ৮ অক্টোবর ২০২১  

আগামী ৬০দিনের মধ্যে বগুড়া জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচনের সিদ্ধান্ত হয়েছে।  বৃহস্পতিবার সকালে শহরের চারমাথায় অনুষ্ঠিত সংগঠনের সাধারণ সভায় এ ঘোষণা দেয়া হয়। নির্বাচনের জন্য নিরপেক্ষ ভেন্যু হিসেবে বগুড়া জিলা স্কুল মাঠ,আলতাফুনেচ্ছা খেলার মাঠ, বীর মুক্তিযোদ্ধা মমতাজ উদ্দিন ফুটবল স্টেডিয়াম ও সেন্ট্রাল হাই স্কুল মাঠের প্রস্তাব করা হয় সভায়।  

পাশাপাশি নির্বাচন পরিচালনার জন্য ৬ সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচন মনিটরিং কমিটি গঠিত হয়। এতে  জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতা সৈয়দ কবির আহম্মেদ মিঠু পক্ষ থেকে তিনজন এবং বাকি তিনজন আব্দুল হামিদ মিটুল  ও সামছুদ্দিন শেখ হেলালের পক্ষ থেকে মনোনীত করা হয়েছে।  

সৈয়দ কবির আহম্মেদ মিঠুর পক্ষের তিনজন হলেন- আনোয়ার হোসেন, বাবু দীপক কুমার ও আব্দুল কুদ্দুসের এবং বাকি তিনজন   হাসিবুর রহমান বিলু, সাগর কুমার রায় ও মকবুল হোসেন মুকুল। এছাড়া সাইফুল ইসলাম পল্টুকে উভয় পক্ষের মনিটর হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়।এদিকে নির্বাচনের তারিখ, স্থান এবং নির্বাচন মনিটরিং কমিটি ঘোষণার আগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল হামিদ মিটুল। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি, সাবেক মন্ত্রী শাজাহান খান এমপি। প্রধান বক্তা ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী। 

সভায় প্রধান অতিথি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শ্রমিকদের কল্যাণে পদক্ষেপ নিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকার শ্রমিকদের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন। করোনাকালে শ্রমিকদের সহায়তা দিয়েছেন। আন্দোলন সংগ্রামে আহত ও নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে আর্থিক অনুদান দিয়েছেন। শ্রমিকদের ন্যায্য দাবী আদায়ে আমরা সবসময় মাঠে রয়েছি। 

তিনি নেতৃবৃন্দদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানিয়ে বলেন, 'আমরা ইতিমধ্যেই পরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধ করেছি, আমাদের নির্ধারিত সাংগঠনিক খরচ তার জন্য নির্দেশিকা দিয়েছি, তার বেশি কেউ নিলে সেটা হবে চাঁদাবাজি। আমরা তার বাহিরে আর এক টাকাও কাউকে সংগ্রহ করতে দিব না, যারা চাঁদাবাজি করবে অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিব, চাঁদাবাজির জন্য কোন শ্রমিক দায়ী হতে পারে না। কোন ব্যক্তি যদি চাঁদাবাজি করে সে দায় তার, আমাদের কোন দ্বায় নেই।'

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল গফুরের সঞ্চালনায় সভায় সংগঠনের আয় ব্যয়ের রিপোর্ট পেশ করেন জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সামছুদ্দিন শেখ হেলাল। পরে বক্তব্য রাখেন পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের রাজশাহী বিভাগীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রফিকুল ইসলাম রফিক, সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব হোসেন, রাজশাহী বিভাগীয় শ্রম দপ্তরের সহকারী পরিচালক রাজিয়া সুলতানা, মিজানুর রহমান, জেলা মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম, জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি আব্দুল মান্নান আকন্দ, শ্রমিক নেতা সৈয়দ কবির আহম্মেদ মিঠু, মান্নান মন্ডল, নিহাজুল ইসলাম মনা, কফিল উদ্দিন প্রমুখ। 

এসময় পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শাহ আখতারুজ্জামান ডিউক, তৌফিক হাসান ময়না, পৌর কাউন্সিলর আব্দুল মতিন সরকার, খোরশেদ আলম, খলিলুর রহমান, বাবর আলী মোল্লাসহ মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যনির্বাহি কমিটির নেতৃবৃন্দ।

সভায় কার্যনির্বাহি কমিটি ৩০ সদস্য থেকে কমে ২১ সদস্য বিশিষ্ট করা হয়। এছাড়া মৃত শ্রমিকদের জন্য ৬০ হাজার টাকা অনুদান, শ্রমিকের মেয়ের বিয়ের জন্য ২০ হাজার টাকা, বয়স্ক শ্রমিকদের ভাতা, মেধাবী শিক্ষার্থীদের বই ক্রয়ের অনুদানের সিদ্বান্ত সর্বসম্মতিক্রমে পাশ করা হয়।

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া