• শনিবার   ১৬ অক্টোবর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৩০ ১৪২৮

  • || ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

যুবদল নেতার মারপিটে পা হারালেন মানসিক প্রতিবন্ধি মেহেদী হাসান

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ৯ অক্টোবর ২০২১  

বগুড়ার শাজাহানপুরে মেহেদী হাসান ওরফে রাজু (৩০) নামে একজন মানসিক প্রতিবন্ধিকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করে এক পা ভেঙ্গে ফেলেছে মারুফ হোসেন (২৮) নামে এক যুবদল নেতা। গুরুতর আহত অবস্থায় মেহেদী হাসানকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে চিকিৎসাধিন থাকাকালিন অবস্থার অবনতি হওয়ায় মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) বিকেলে তার পা কেটে ফেলা হয়েছে।

প্রতিবন্ধি মেহেদী হাসান বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার চোপীনগর ইউনিয়নের শাহনগর বিলায়েতপাড়া গ্রামের দিনমজুর আজাহার আলী ওরফে রাজা মিয়ার ছেলে। এঘটনায় মেহেদী হাসানের ভাই আলমগীর হোসেন বাদি হয়ে শাজাহানপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। যুবদল নেতা মারুফ হোসেন উপজেলার শাহনগর ডাক্তারপাড়া গ্রামের আজিজার রহমানের ছেলে। তিনি উপজেলা যুবদলের আহবায়ক কমিটির সদস্য। তার নামে থানায় একাধিক নাশকতার মামলা রয়েছে।

আলমগীর হোসেন জানান, তার বড়ভাই মেহেদী হাসান একজন মানসিক প্রতিবন্ধি। ঝোঁপ-ঝাড়ে বাঁশের কি র খুঁটি গেড়ে প্লাষ্টিকের বস্তা দিয়ে ঘর বানিয়ে খেয়াল খুশি মত থাকতেন। গত ২০ আগষ্ট রাত সাড়ে ১২টার দিকে তার প্রতিবন্ধি ভাই মেহেদী হাসান বাড়ির অদূরে বাঁশঝাড়ের ভিতর গিয়ে দেখেন তার ঝুপড়ি ঘরে যুবদল নেতা মারুফ হোসেনসহ ৪-৫ জন বসে আড্ডা দিচ্ছে। তখন তাদেরকে ঘর থেকে বের হয়ে যেতে বললে যুবদল নেতা মারুফ হোসেন তার ভাইকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। একপর্যায়ে উভয়ের মধ্যে হাতাহাতি হয়। পরের দিন ২১ আগষ্ট মারুফ হোসেন লাঠি হাতে নিয়ে মেহেদী হাসানকে খুঁজতে থাকে।

বেলা ৩টার দিকে ওই বাঁশঝাড়ের ভিতর মেহেদী হাসানকে একা পেয়ে লাঠি দিয়ে এলোপাথারি মারপিট করে। একপর্যায়ে পিটিয়ে ডান পায়ের হাটুর নীচে থেতলে ভেঙ্গে ফেলে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে দীর্ঘ এক মাস চিকিৎসাধিন থাকাকালিন সময়ে বেশ কয়েকবার অস্ত্রপাচার করার পরও মাংস পঁচে খসে পড়তে থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শে আজ মঙ্গলবার বিকেলে হাটুর উপর পর্যন্ত কেটে ফেলা হয়েছে।

 

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া