• শুক্রবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৮

  • || ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

শেরপুর উপজেলার ৩৯ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ২৮ অক্টোবর ২০২১  

আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জন্য শেরপুর উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ৩৯ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বুধবার (২৭ অক্টোবর) সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং অফিসারগণ এই প্রতীক বরাদ্দ দেন। এক নজরে জেনে নিন কে কোন প্রতীক পেয়েছেন।

কুসুম্বী ইউনিয়নের ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী মো. আখতার হোসেন পেয়েছেন হাতপাখা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আব্দুল মমিন পেয়েছেন আনারস, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শাহ আলম পান্না পেয়েছেন মোটরসাইকেল, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) এর মোছা. রাজিয়া সুলতানা পেয়েছেন মশাল এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শেখ মো. জুলফিকার আলী সনজু পেয়েছেন নৌকা প্রতীক।

খামারকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী স্বতন্ত্র মো. আব্দুল ওহাব পেয়েছেন আনারস, আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আব্দুল মতিন পেয়েছেন চশমা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মো আব্দুল মমিন মহসিন পেয়েছেন নৌকা।

খানপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পরিমল দত্ত পেয়েছেন নৌকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. পিয়ার উদ্দিন পেয়েছেন ঘোড়া এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শফিকুল ইসলাম রানজু পেয়েছেন আনারস।

মির্জাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর নূর মোহাম্মাদ পেয়েছেন হাতপাখা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আব্দুল মোনায়েম খান পেয়েছেন অটোরিক্সা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জাহিদুল ইসলাম পেয়েছেন আনারস, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মোস্তাফিজার রহমান মোস্তাক পেয়েছেন ঘোড়া এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মোহাম্মাদ আলী পেয়েছেন নৌকা প্রতীক।

বিশালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী স্বতন্ত্র এসএম রাফিউল ইসলাম লাবু পেয়েছেন মোটর সাইকেল, জাকের পার্টির মো. আবুল বারী মিঠু পেয়েছেন গোলাপ ফুল, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মো. আব্দুর রহমান পেয়েছেন হাতপাখা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জাকির হোসেন খান পেয়েছেন ঘোড়া, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মো. শাহজাহান আলী পেয়েছেন নৌকা এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী সুধান্য চন্দ্র পেয়েছেন আনারস মার্কা।

ভবানীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মো. আবুল কালাম আজাদ পেয়েছেন নৌকা, জাকের পার্টির মো. আশরাফ আলী পেয়েছেন গোলাপ ফুল, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. গোলাম মোস্তফা পেয়েছেন অটোরিক্সা এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর প্রার্থী মো. জাফর ইকবাল পেয়েছেন হাতপাখা।

সুঘাট ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন জেহাদ পেয়েছেন টেলিফোন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মো. আহসান হাবিব পেয়েছেন হাতপাখা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মো. মনিরুজ্জামান জিন্নাহ পেয়েছেন নৌকা প্রতীক।

সীমাবাড়ী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. আফতাব হোসেন তালুকদার পেয়েছেন ঘোড়া মার্কা এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী শ্রী গৌরদাস রায় চৌধুরী পেয়েছেন নৌকা মার্কা।

শাহবন্দেগী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী স্বতন্ত্র আব্দুস সামাদ মন্ডল পেয়েছেন টেলিফোন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আবু তালেব আকন্দ পেয়েছেন নৌকা, স্বতন্ত্র প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ পেয়েছেন আনারস, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. আব্দুর রাজ্জাক পেয়েছেন হাতপাখা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আসাদুল ইসলাম পেয়েছেন অটোরিক্সা, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মুঞ্জরুল হক পেয়েছেন ঘোড়া, জাকের পার্টির মো. লাল মিয়া পেয়েছেন গোলাপফুল এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সিদ্দিক ভুঁইয়া পেয়েছেন মোটর সাইকেল মার্কা।

শেরপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা. আছিয়া খাতুন জানান, ৩৯ চেয়ারম্যান প্রার্থী সহ সর্বমোট ৪৩৯ জন প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

আগামী ১১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত গোপন ব্যালটের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে বলে তিনি জানান।

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া