• মঙ্গলবার   ০৯ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৫ ১৪২৯

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৪

বগুড়ায় শুরু হয়েছে ঈদের কেনাকাটা

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ৩ জুলাই ২০২২  

ঈদ উল আযহা উপলক্ষ্যে বগুড়া নিউ মার্কেটে শুরু হয়েছে কেনাকাটা। বাহারী সব শাড়ী, থ্রি পিসের পসরা সাজিয়ে রেখেছে বিক্রেতারা। পছন্দ অনুযায়ী খুব সহজেই ক্রেতারা বেছে নিতে পারবেন তাদের পছন্দের পোশাক। এদিকে পাঞ্জাবি, সিট কাপড়ের দোকানেও ঈদের আমেজ লেগেছে।

শনিবার বিকেলে বগুড়া নিউ মার্কেট ঘুরে ঘুরে এসব চিত্র দেখা যায়। নবরুপা, বুটিক্স, সাধারণ টাঙ্গাইল, সিল্ক, নেট শাড়ি, বেনারসি ও জর্জেটের নতুন সব কালেকশন ক্রেতাদের উল্টে-পাল্টে দেখাচ্ছেন বিক্রেতারা। তবে ক্রেতাদের অভিযোগ আগের ঈদের চেয়ে দাম এবার একটু বেশি। তাই পছন্দ হলেও দামে হচ্ছে না।

বিক্রেতারা বলছেন, এবার ঈদের পোশাকের কালেকশন ভালো। তবে শাড়ি-কাপড়ের রেট বেড়ে যাওয়ায় ক্রেতাদের সন্তুষ্ট করতে পারছেন না তারা। শাড়ী প্যালেসের দীপু নামে এক বিক্রেতা জানান, সিল্ক ২৫০০ থেকে ৩ হাজার, নেট শাড়ী ৩ থেকে ৬ হাজার, হাড্ডি ৬ থেকে ১২ হাজার, অর্গেঞ্জা সাড়ে ৩ থেকে ৮ হাজার, বেনারসি ৩ থেকে ১০ হাজার ও জর্জেট ৩ থেকে ৬ হাজার টাকায় টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে এবার।

ঈদের মার্কেটে তাদের বেচাকেনা কেমন জানতে চাইলে তিনি জানান, এখনও পুরোদমে ক্রেতারা কেনাকাটা শুরু করেনি। তবে আমরা আশা করছি বিক্রি আরো বাড়বে। হৃদয় থ্রি পিসের দোকানে গিয়েও একই চিত্র দেখা যায়। দামে একটু বেশি হওয়ায় অনেক ক্রেতাই ঘুরে যাচ্ছেন।

এদিকে পাশেই টাঙ্গাইল নামের শাড়ির দোকানে দেখা যায় ভিন্ন চিত্র। ক্রেতাদের চাপে হিমশিম খাচ্ছেন বিক্রেতারা। ক্লান্ত শরীরে মুখে তাদের হাসির ঝলক। জানতে চাইলে বেলাল হোসেন নামের এই দোকানের এক বিক্রেতা জানান, ঈদ উপলক্ষ্যে খুব ভালো বিক্রি হচ্ছে। ক্রেতাদের ভিড় বাড়তে শুরু করেছে মার্কেটে। শাড়ীর মধ্যে নবরুপা ১৫০০ থেকে ২৫০০, বুটিক্স ১৮০০ থেকে ৩ হাজার,  সাধারণ টাঙ্গাইল ৮০০ থেকে ১৩০০ ও অনলাইনের সুতি শাড়ী ৩০০ থেকে ৬০০ টাকা দরে বিক্রি করছেন তারা।

তিনি বলেন, আজ ক্রেতাদের চাপ বেড়েছে। আমরা ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। তবে বিক্রি ভালো হওয়ায় অনেক খুশী আমরা। 

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া