শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

আবারও সবচেয়ে দামি ফুটবল ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ

আবারও সবচেয়ে দামি ফুটবল ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদ

ইউরোপিয়ান ক্লাব ফুটবলে রিয়াল মাদ্রিদ বিশ্বের সেরা ফুটবলারদের বহুল আকাঙ্ক্ষিত গন্তব্য। স্প্যানিশ এ ক্লাব দীর্ঘদিন ধরে রাজত্ব করে চলেছে ক্লাব ফুটবলের সকল প্রতিযোগীতায়। জিনেদিন জিদান, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর মত তারকারা কিংবদন্তির জন্ম দিয়েছেন এ ক্লাবে খেলেই। সম্প্রতি মার্কিন ব্যবসা সাময়িকী ফোর্বস বরাবরের মতই বিশ্বের দামি ক্লাব গুলোর একটি তালিকা করেছে। এ তালিকায় ৩০ টি ক্লাবের মধ্যে নিজেদের সেরা অবস্থান ধরে রেখেছে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের রাজা মাদ্রিদ।

ফোর্বসের তালিকায় স্থান পাওয়া ৩০ টি ক্লাবের মধ্যে ৬ বিলিয়ন ডলার মূল্যের ক্লাব আছে শুধু দুইটি। এই মুহূর্তে রিয়ালের বাজারমূল্য ৬.০৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৬৫ হাজার ৯০ কোটি ৮৫ লাখ টাকার বেশি। ফলে তালিকার এলেবারে শীর্ষে অবস্থান করছে স্প্যানিশ জায়ান্টরা। এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় বছর বিশ্বের দামি ক্লাবের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছেন ক্লাবটি।

অন্যদিকে, ৬ বিলিয়ন ডলার মূল্যের আরেকটি ক্লাব ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ইংল্যান্ডের ক্লাবটির বাজারমূল্য ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৬৪ হাজার ৬৪০ কোটি টাকার বেশি। ফোর্বসের তথ্যমতে, ম্যানইউ শীঘ্রই ৬ বিলিয়ন ডলারে বিক্রি হতে পারে। যুক্তরাজ্যের শীর্ষ ধনী স্যার জিম র‍্যাটক্লিপ ও কাতারের ব্যবসায়ী শেখ জসিম ম্যানচেস্টারের ক্লাবটি কিনতে চাওয়াতেই বাজারমূল্য বেড়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গতবারের তালিকায় তিন নম্বরে থাকা ক্লাবটির এবার বাজারমূল্য বেড়েছে ৩০ শতাংশ।

এদিকে গত ৯ টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ আসরের মধ্যে ৫ টিতেই ফাইনাল খেলেছে রিয়াল মাদ্রিদ যার সবকটিতেই তারা শিরোপা জিতেছে। গত এক বছরে তাদের বাজারমূল্য বেড়েছে ১৯ শতাংশ। সান্তিয়াগো বার্নাব্যু স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ চলমান থাকার পরও বাজারমূল্য বাড়ার মূল কারণ সেখানে ৪০ কোটি মার্কিন ডলারের একটি অর্থায়ন।

স্পেনের আরেক ক্লাব বার্সেলোনা এবার দুই থেকে নেমে গেছে তালিকার তিনে। এবার ক্লাবটির বাজারমূল্য ৫.৫১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার যা গত বছরের তুলনায় ১০ শতাংশ বেশি।

দামি ক্লাবের তালিকায় শীষ দশে থাকা অন্য ক্লাবগূলো যথাক্রমে লিভারপুল (৫.২৯ বিলিয়ন), ম্যানচেস্টার সিটি (৪.৯৯ বিলিয়ন), বায়ার্ন মিউনিখ (৪.৮৬ বিলিয়ন), পিএসজি (৪.২১ বিলিয়ন), চেলসি (৩.১ বিলিয়ন), টটেনহাম (২.৮ বিলিয়ন) ও আর্সেনাল (২.২৬ বিলিয়ন)।ইতালিয়ান ক্লাবের তালিকায় সবথেকে এগিয়ে আছে জুভেন্টাস, তালিকায় তাদের স্থান এগারো, আবার ২০ বছর পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জায়গা করে নেয়া নিউক্যাসল ইউনাইটেডের দাম একলাফে ৫১ শতাংশ বেড়েছে, ফলে তালিকায় তারা আছে ২২ তম স্থানে। নতুন মালিকানায় বড় অঙ্কের অর্থের যোগানের কারণেই এমনটি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

দৈনিক বগুড়া

সর্বশেষ: