• বুধবার   ০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২৪ ১৪২৮

  • || ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

গরম পানিতে মধু মিশিয়ে খাচ্ছেন ? লাভের চেয়ে ক্ষতিই বেশি

দৈনিক বগুড়া

প্রকাশিত: ১৮ অক্টোবর ২০২১  

বাড়তি ওজন নিয়ে দুশ্চিন্তা করেন না এমন মানুষ খুব কমই আছে। ওজন কমাতে তাই নিত্যনতুন ডায়েট অনুসরণ করেন। এর মধ্যে একটি হচ্ছে গরম পানিতে মধু মিশিয়ে খাওয়া। অনেকেই দিন শুরু করেন খালি পেটে এক কাপ উষ্ণ পানিতে মধু মিশিয়ে খেয়ে। কেউ কেউ তাতে একটু লেবুও দেন। ভাবেন এতে ওজন কমবে। 

তবে আয়ুর্বেদ চিকিত্সক রাধামণি উল্টোটাই জানাচ্ছেন।

আয়ুর্বেদ চিকিত্সকের কথায়, গরম পানিতে মধু একটা ধীর গতির বিষ। এটি শকীক অম, বা বিষের সৃষ্টি করে। দীর্ঘমেয়াদে এর ফলে বিভিন্ন রোগ হতে পারে।

তিনি আরো বলেন, চরকের লেখনী অনুযায়ী এটি 'সংস্কারবিরুদ্ধ'। এটি হজম করাও কঠিন। তিনি বলেন, মধু খাওয়ার একমাত্র শ্রেষ্ঠ উপায় হলো সাধারণ তাপমাত্রায় খাওয়া। এতে প্রচুর পরিমাণে রেণু, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট থাকে যা শরীরের পক্ষে উপকারী। 

যদিও পুষ্টিবিদদের দাবি, মধু হালকা গরম পানিতে মিশিয়ে খাওয়া যেতেই পারে। এক পুষ্টিবিদ জানালেন, ওজন নিয়ন্ত্রণ করার জন্য চা, কফিতে চিনির বদলে মধু ব্যবহার করা যেতেই পারে। বেশি তাপমাত্রায় মধুর উপকারিতা কিছুটা নষ্ট হতে পারে। কিন্তু তা চিনির থেকে অনেক বেশি ভালো। আর কোনোমতেই ক্ষতিকর নয়।

চিনি রিফাইন্ড কার্বোহাইড্রেট। এতে মিষ্টত্ব ছাড়া অন্যান্য গুণ কিছুই নেই। কিন্তু মধুতে উপকারী অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, ভিটামিন ভরপুর। নিয়মিত মধু খেলে তা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। তাছাড়া ত্বকের জন্যও এটি বেশ উপকারী। 

দৈনিক বগুড়া
দৈনিক বগুড়া