বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০

সবজি-ব্রয়লারের দাম কম, স্বস্তি মাছের বাজারে

সবজি-ব্রয়লারের দাম কম, স্বস্তি মাছের বাজারে

সংগৃহীত

রাজধানীর বাজারগুলোতে সবজি, মাছ, মুরগিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম আরো কমেছে। সরবরাহ বেশি থাকায় সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ১০-২০ টাকা কমেছে শীতকালীন সবজির দাম। এছাড়া প্রতি কেজি মাছের দাম কমেছে ২০-১০০ টাকা, গরুর মাংস নেমেছে ৫৫০-৬০০ টাকায়।

শুক্রবার রাজধানীর কারওয়ান বাজার, মালিবাগ, রামপুরা, তালতলা, শেওড়াপাড়া কাঁচাবাজার ঘুরে এবং ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, চলতি সপ্তাহে ব্রয়লার মুরগি ১৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহে বিক্রি হচ্ছিল ১৮০-১৯০ টাকা। এছাড়া সোনালি ২৭০ টাকা, সোনালি হাইব্রিড ২৬০, দেশি মুরগি ৫০০ থেকে ৫২০, লেয়ার ২৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

শীতকালীন সবজি সরবরাহ ভালো থাকায় শিম, গাজর ও ফুলকপিসহ সব ধরনের সবজির দাম স্থিতিশীল রয়েছে। আগামী সপ্তাহে শীতকালীন দাম আরো কমে আসতে পারে। শুক্রবার বাজারে বেগুন বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি ৫০ থেকে ৬০ টাকা, করলা ৬০, ঢেঁড়স ৬০, পটল ৫০, বরবটি ৮০, ধুন্দুল ৪০, চিচিঙ্গা ৫০, শসা ৬০ থেকে ৭০, পেঁপে ৩০, মিষ্টি কুমড়া ৪০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে এবং ধনে পাতা বিক্রি হয়েছে ২০০ টাকা কেজি।

এছাড়া লেবুর হালি ২০ থেকে ৪০ টাকা, কলার হালি বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা এবং জালি কুমড়া ৪০ টাকা। এদিকে আলু বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৫০ টাকা, নতুন আলু ৭০, দেশি পেঁয়াজ ১৩০, ভারতীয় পেঁয়াজ ১০০ এবং কাঁচা মরিচ ৮০ থেকে ১২০ টাকায়। প্রতি কেজি মুলা বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা, শিম ৫০ থেকে ৭০, পাকা টমেটো প্রকারভেদে ১০০ থেকে ১২০, কচুরমুখী ৭০ এবং গাজর ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া লাল শাক ১০ টাকা আঁটি, লাউ শাক ৩০, মূলা শাক ১০, পালং শাক ১৫, কলমি শাক ৮ টাকা আঁটি দরে বিক্রি করতে দেখা গেছে।

বাজারে গরুর মাংস কেজি প্রতি ৫৫০ থেকে ৬০০ টাকা এবং খাসির মাংস ১০০০-১১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এক ডজন লাল ডিম বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকায়, হাঁসের ডিম ২০০ এবং দেশি মুরগির ডিমের হালি ৮০ টাকা।

বাজারে ৪০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ মাছ কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৭০০ টাকা, এক কেজি শিং মাছ (চাষের) আকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ৩০০ থেকে ৫০০, প্রতি কেজি রুই মাছ (আকারভেদে) ৪০০ থেকে ৫৫০, মাগুর মাছ ৭০০ থেকে ৯০০, মৃগেল ৩০০ থেকে ৪৫০, পাঙাস ২০০ থেকে ২২০, চিংড়ি প্রতি কেজি ৬০০ থেকে ৮০০, বোয়াল মাছ প্রতি কেজি ৪০০ থেকে ৯০০, কাতল ৪০০ থেকে ৬০০, পোয়া মাছ ৩৫০ থেকে ৪০০, পাবদা মাছ ৪০০ থেকে ৪৫০, তেলাপিয়া ২২০, কৈ মাছ ২২০ থেকে ২৩০, মলা ৫০০, বাতাসি টেংরা ৯০০, টেংরা মাছ ৬০০ থেকে ৭০০, কাচকি মাছ ৬০০, পাঁচ মিশালি মাছ ২২০, রুপচাঁদা ১ হাজার, বাইম মাছ ১ হাজার থেকে ১ হাজার ২০০, দেশি কই ১০০০, মেনি মাছ ৭ হাজার ৬০০, শোল মাছ ৬০০ থেকে ৮০০, আড়ই মাছ ৬০০ থেকে ৮০০ এবং কাইকলা মাছ ৬০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

শিরোনাম:

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির প্রজ্ঞাপন আজই: নসরুল হামিদ
৪২৪ কোটি টাকার তেল-ডাল-গম কিনছে সরকার
সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ আজ
ধুনটে জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস পালিত
নিরাপদ-পরিবেশবান্ধব শিল্প-কারখানা গড়ে তুলতে হবে: রাষ্ট্রপতি
মার্চ থেকে আবারও বাড়ছে বিদ্যুতের দাম: নসরুল হামিদ
বগুড়ার শেরপুরে স্থানীয় সরকার দিবস উপলক্ষ্যে উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন
বগুড়ায় জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত
বগুড়ার চরাঞ্চলে বাদামের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা
৩ চাকার যান বন্ধে বগুড়া-নাটোর মহাসড়কে কঠোর অবস্থানে হাইওয়ে পুলিশ
২৪ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এলো ১৮ হাজার কোটি টাকা
বাংলাদেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অনেকের জন্য অনুপ্রেরণা