রোববার, ২৬ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

হলো না মিটমাট, বিচ্ছেদের জন্য আদালতে ধানুশ-ঐশ্বরিয়া

হলো না মিটমাট, বিচ্ছেদের জন্য আদালতে ধানুশ-ঐশ্বরিয়া

সংগৃহীত

২০২২ সালের জানুয়ারিতে তারা আলাদা হওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন। যা ছিল ভক্তদের জন্য অনাকাঙ্ক্ষিত এক সংবাদ। কারণ বিয়ের পর থেকে সুখেই সংসার করে আসছিলেন দক্ষিণী তারকা ধানুশ ও নির্মাতা ঐশ্বরিয়া রজনীকান্ত। আলাদা হওয়ার পর একাধিকবার গুঞ্জন উঠেছিল যে, ফের এক হবেন তারা। পারিবারিকভাবে বিষয়টিকে মিটমাটের চেষ্টা চলছে।

কিন্তু না, হয়নি মিটমাট। ভেঙেই যাচ্ছে ভালোবাসার ঘর। ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, বিচ্ছেদের জন্য চেন্নাই পারিবারিক আদালতে আবেদন করেছেন ধানুশ-ঐশ্বরিয়া। ১৩বি সেকশনের অধীনে পারষ্পরিক সমঝোতায় বিচ্ছেদের পথে এগোচ্ছেন তারা। শিগগিরই তাদের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে দুই পক্ষের কথা শুনে বিচ্ছেদের রায় দেবেন আদালত।

ঐশ্বরিয়া হলেন তামিল কিংবদন্তি রজনীকান্তের কন্যা। জমকালো আয়োজনে ২০০৪ সালে বিয়ে করেছিলেন ধানুশ-ঐশ্বরিয়া। যাত্রা ও লিংগা নামের দুই সন্তান রয়েছে তাদের। দীর্ঘ ১৮ বছরের সংসার করে ২০২২ সালের ১৭ জানুয়ারি আলাদা হওয়ার ঘোষণা দেন ‘মারি’ তারকা। এক বিবৃতিতে লিখেছিলেন, ‘১৮ বছরের বন্ধুত্ব, দাম্পত্য, বাবা-মা এবং একে-অপরের শুভাকাঙ্ক্ষী। এগিয়ে যাওয়া, বোঝাপড়া এবং মানিয়ে নেওয়ার মধ্য দিয়ে গেছে সময়টা। আজ আমরা এমন পর্যায়ে, দুজনের পথ আলাদা। ঐশ্বরিয়া ও আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি আলাদা হওয়ার।’

ধানুশ-ঐশ্বরিয়ার বিয়ের ছবি বিচ্ছেদ ঘোষণার পর থেকে ধানুশ ও ঐশ্বরিয়া দুজনেই নিজ নিজ ক্যারিয়ারে পূর্ণ মনোযোগ দিয়েছেন। যেমন ঐশ্বরিয়ার নির্মাণে কিছু দিন আগে মুক্তি পেয়েছে ‘লাল সালাম’ ছবিটি। যেখানে রজনীকান্তও রয়েছেন। ধানুশও ছবিটির জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন।

অন্যদিকে ধানুশকে সর্বশেষ দেখা গেছে ‘ক্যাপটেন মিলার’-এ। গত ১২ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়া ছবিতি বক্স অফিসে ১০৪ কোটি রুপির বেশি সংগ্রহ করেছে। আগামীতে তিনি নিজের পরিচালনায় ‘রায়ান’ নামের একটি ছবি নিয়ে আসছেন।  

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

সর্বশেষ: