রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১

ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা অ্যালকোহল পানে ঝুঁকছে বেশি

ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা অ্যালকোহল পানে ঝুঁকছে বেশি

সংগৃহীত

কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে অ্যালকোহল এবং ই-সিগারেটের অতিরিক্ত ব্যবহার হতে পারে বিপজ্জনক। সতর্ক করার পাশাপাশি এইগুলো সহজেই পাওয়ার বিষয়ে নজর দিয়ে সীমিত করার ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

ইউরোপ, মধ্য এশিয়া এবং কানাডা মিলিয়ে প্রায় ৩ লাখ ১১-১৫ বছর বয়সী কিশোর কিশোরীদের উপর একটি সমীক্ষা করা হয়। সেই তথ্যের ভিত্তিতে ডব্লিউএইচও বলেছে, তরুণদের মধ্যে অতিরিক্ত অ্যালকোহল এবং ই-সিগারেট ব্যবহার উদ্বেগের বিষয়।

সমীক্ষায় ১৫ বছর বয়সীদের মধ্যে ৫৭ শতাংশ কিশোর-কিশোরী একবার হলেও অ্যালকোহল পান করেছে। ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের মধ্যে অ্যালকোহল পান করার প্রবণতা বেশি পাওয়া গেছে। ছেলেদের মধ্যে এই সংখ্যা ৫৬ শতাংশ হলেও মেয়েদের মধ্যে এই সংখ্যা ছিল ৫৯ শতাংশ।

সমীক্ষায় জানা গেছে, বয়স বাড়ার সঙ্গে ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের মধ্যে অ্যালকোহল পান করার প্রবণতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এদিকে ১১ বছর বয়সী ৮ শতাংশ ছেলেরা এবং ৫ শতাংশ মেয়েরা ৩০ দিনে একবার হলেও অ্যালকোহল পান করেছে। ১৫ বছর বয়সী ৩৬ শতাংশ ছেলেরা এবং প্রায় ৩৮ শতাংশ মেয়েরা ৩০ দিনে একবার হলেও অ্যালকোহল পান করেছে।

সমীক্ষায় অ্যালকোহলের পাশাপাশি কিশোর কিশোরীদের মধ্যে ই-সিগারেট ক্রমবর্ধমান ব্যবহারও তুলে ধরা হয়েছে। জানা গেছে ২০২২ সালে, ১১-১৫ বছর বয়সীদের ১৩ শতাংশ ধূমপান করেছে, তাদের মধ্যে অনেকেই ই-সিগারেটের ব্যবহার করে, যার কারণে অনেক কিশোর-কিশোরীরা সিগারেট ছেড়ে দিয়েছে। ১৫ বছর বয়সীদের মধ্যে প্রায় ৩২ শতাংশ ব্যবহার করেছে ই-সিগারেট।

অ্যালকোহল এবং ধূমপান সম্পর্কিত বস্তু সহজলভ্য হয়ে গিয়েছে বলেই বর্তমানে কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে এই সংখ্যা উঠে এসেছে। পরবর্তী সময়ে এই সংখ্যা আরো বাড়বে। তাই অ্যালকোহল ও ধূমপানের মাধ্যমে হওয়া ক্ষতির হাত থেকে শিশু এবং যুবকদের রক্ষা করার জন্য নীতি ব্যবস্থা আরও কঠোর করার সুপারিশ করেছে ডব্লিউএইচও।

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ: